আমাদের দেশদেশলাইফস্টাইল

বাসা থেকে অফিসের কাজ করার সময় ৫ টি হ্যাক।

অফিসরে কাজ
37views

আমাদের অনেকের ক্ষেত্রে, করোনাভাইরাস মহামারীর কারণে বাড়ি থেকে কাজ শুরু করার এক বছরের বেশি সময় হয়ে গেছে। একদিকে, এটি আমাদের নিজের জায়গায় কাজ করার আরামের সাথে সংক্রামিত হতে বাঁচিয়েছিল। তবে অন্যদিকে, বাড়ি থেকে কাজ করা অগণিত মানুষের মানসিক ও সুস্থাকেও প্রভাবিত করে।

ইউনিভার্সিটি অফ সাউদার্ন ক্যালিফোর্নিয়ায় গবেষকদের এক গবেষণা অনুসারে, বাড়ি থেকে কাজ করা “কাজের প্রত্যাশা এবং বিঘ্ন বাড়িয়েছে, সহকর্মীদের সাথে আমাদের যোগাযোগ হ্রাস করেছে এবং শেষ পর্যন্ত আমাদের উত্পাদনশীলতা হ্রাস পেয়েছে।” এছাড়াও, আমরা যাদের নিজেদের থেকে উচ্চ প্রত্যাশা রাখি তারা প্রায়শই দূরবর্তী কাজকর্মের সাথে আসা সমস্ত ঝামেলাতে বিরক্ত হয়।

আপনি যখন বাড়ি থেকে কাজ করছেন তখন বুদ্ধিমান থাকার জন্য ৫ টি টিপস আপনার জন্য খুবি উপকারি।

১. একটা পরিকল্পনা করুন

diary

আপনার সহকর্মীদের বা কর্তাদের বাহ্যিক অনুস্মারক ছাড়াই আপনি যখন বাড়ি থেকে কাজ করছেন তখন সহজেই ক্লান্ত হয়েযেতে পারেন। তাই একটি পরিকল্পনা কাজটিকে আরাম দায়ক এবং সহজ করে তোলে। কিছু শ্রমিক প্রথাগত সময়সূচী তৈরি করে, অন্যরা একটি সাধারণ চেকলিস্ট ব্যবহার করে, তবে কার্যগুলি সম্পর্কে চিন্তাভাবনা ও লেখার জন্য এবং আপনি যখন সেগুলি করবেন তখন প্রতিটি দিনের শুরুতে কিছুটা সময় নেয়। তবে আপনার কাজ গুছানো হওয়ার কারনে কাজ করতে ভাল লাগবে।

২. আপনার প্রত্যাশা পরিবর্তন করুন

ঝামেলা

মহামারীজনিত কারণে বাড়ি থেকে কাজ করা সাধারণ পরিস্থিতিতে করার মতো নয়। আপনার বাড়িতে বাচ্চা বা অন্যান্য প্রাপ্তবয়স্করা থাকতে পারে যার ফলশ্রুতি বিঘ্ন ঘটাবেই। তবে মহামারী চলাকালীন সময়ে বাসায় কাজ করার সময় সর্বদা দূরবর্তী কাজের উত্পাদনশীলতার মডেল হওয়ার আশা করবেন না। ভিডিও কল চলাকালীন পটভূমিতে বাচ্চাদের বা পোষা প্রাণীর মধ্যে সমস্ত কিছু আলিঙ্গন করুন বা আপনি ফোনে থাকাকালীন মাঝে মাঝে বাচ্চার কান্না শুনতে পান। এটা নিয়ে মাথা গরম না করে এটাকে সাভাবিক বিষয়ের মত নিন এত করে মাথা ঠান্ডা থাকবে।

৩. একটি কর্মক্ষেত্র তৈরি করুন

কর্মক্ষেত্র

যদি আপনার কোনও হোম অফিস না থাকে, তবে এমন কোনও স্থান সন্ধান করুন যা যথাযথভাবে শান্ত, সুবিধাজনক, অর্গনোমিক এবং এটি আপনার বিছানা নয়! আপনার বাড়ির হইহোল্লর এড়াতে সর্বোচ্চ চেষ্টা করুন। আপনার কর্মক্ষেত্রটি পর্যাপ্ত ব্যাক সাপোর্ট এবং একটি ভাল কীবোর্ড এবং স্ক্রিন সেটআপ দিয়ে ভালভাবে জ্বালিয়ে রাখলে আপনি দীর্ঘ সময় ধরে বসে আরামদায়ক ভাবে কাজ করতে পারবেন।

৪. সীমানা তৈরি করুন

সীমানা

আপনি যতটা পারেন অফিসের সময় নির্ধারণ করুন এবং তাদের সাথে লেগে থাকুন। বাড়ি থেকে কাজ করা সম্পর্কে একটি চ্যালেঞ্জিং জিনিস হ’ল আপনাকে নিজের গণ্ডি তৈরি করতে হবে। দিন শেষ হওয়ার মতো জিনিসগুলি এবং বাসায় নিজের কাজ করতে যাওয়ার সময় ছাড়া কাজ করা সহজ। তাই বাসায় কাজ করার সময় অন্য কাজ করা থেকে বিরত থাকুন।

৫. কাজের জন্য পোশাক

স্মাট ছেলে

পুরো দিন পায়জামায় থাকা সত্যিই সহজ তবে এটি আপনার দিনটি সম্পর্কে আপনার অনুভূতিকেও প্রভাবিত করবে। পায়জামা পড়ে থাকল অলস অনুভূতি আসে এবং কাজ করার ক্ষেত্রে ধীর গতি  হয়ে আসে এবং মনোযোগী না করেই থাকবেন বলে মনে করছেন। এমন কোনও আরামদায়ক পোশাক পরিধান করুন যা আপনি ঘরের বাইরে পরিধান করবেন।

আরো পড়ুন: সুগন্ধি প্রেমিদের জন্য দারুন ১০টি হ্যাক

Source :